১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

Generic selectors
Exact matches only
Search in title
Search in content
Search in posts
Search in pages

ডায়াবেটিসে কি খেজুর খাওয়া বাদ?

নিজস্ব প্রতিবেদক, হেলথ নিউজ | ৫ জুন ২০১৮, ০১:০৬ | আপডেটেড ৫ জুন ২০১৮, ০১:০৬

20180520_182423

আয়রন ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে পূর্ণ খেজুরে অন্যান্য ‍ফলের চেয়ে ক্যালরি রয়েছে বেশি। তাই একবারে বেশি খেজুর খাওয়া ঠিক নয় বলে মনে করা হয়। প্রচুর ক্যালরি ও মিষ্টি থাকায় ডায়াবেটিস রোগীদের খাদ্যতালিকায় অনেক সময়ই এ ফলটি থাকে না। কিন্তু ডায়াবেটিস রোগীরা কি খেজুর একদম খেতেই পারবেন না?

ভারতের স্যার গঙ্গা রাম হাসপাতালের নিউট্রিশন অ্যান্ড ডায়াটেটিকস বিভাগের প্রধান ডা. মুক্তা ভাসিস্তার মতে, সবারই একটি করে নয় বরং কমপক্ষে দুই/তিনটি করে খেজুর খাওয়া উচিত। আর এ সংখ্যাটা নির্ভর করে রক্তে শর্করার মাত্রার ওপর।

বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, ডায়াবেটিস রোগীরা স্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস ও নিয়মিত শরীরচর্চা করলে তারাও দৈনিক ২-৩টি করে খেজুর খেতে পারবেন। ডায়াবেটিস রোগীদের দৈনিক ক্যালরির ১০ শতাংশ পূরণ করতে হয় চিনি জাতীয় খাবার থেকে। তবে সমস্যাটা হয় তখনই যখন কোনো ডায়াবেটিস রোগী দৈনিক ৩টি করে খেজুর খাওয়ার পাশাপাশি অন্যান্য মিষ্টিজাতীয় খাবার খাওয়াও অব্যাহত রাখেন। এতে অবশ্যই তার রক্তের সুগারের মাত্রা বেড়ে যাবে।

তাই উচ্চ আঁশযুক্ত ও সহজে হজম হওয়া এ ফলটি নিয়মিত খেতে হলে অন্যান্য খাবার খাওয়ার বিষয়েও নজর দিতে হবে।

এক নজরে খেজুর

খেজুরে রয়েছে ফাইবার, আয়রন, পটাসিয়াম, ভিটামিন বি১, ভিটামিন বি৬, ভিটামিন এ, ভিটামিন কে, ভিটামিন বি২, ভিটামিন বি৫, কপার, ম্যাগনেসিয়াম ও ম্যাঙ্গানিজ।

খেজুরে প্রচুর ফাইবার রয়েছে যা রক্তচাপ কমাতে সহায়তা করে। ফাইবার জাতীয় খাবার গ্রহণে টাইপ ২ ডায়াবেটিসের ঝুঁকিও কমে। এতে রয়েছে আয়রন যা রক্তনালীতে অক্সিজেন সরবরাহ করে।

ডায়াবেটিস রোগীর কিডনির রোগ থাকলেই কেবল খেজুরে থাকার পটাসিয়াম কিডনির কার্যকারিতা কমিয়ে দিতে পারে। কিডনির সমস্যা না তাকলে এটা খাওয়া নিয়ে চিন্তার কোনা কারণ নেই।

খেজুরে ভিটামিন বি১ রয়েছে। ডায়াবেটিসের কারণে অনেকসময় নার্ভ ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। ভিটামিন বি১ এটা প্রতিরোধ করে। ভিটামিন বি৬ স্নায়ু স্বাস্থ্য ভালো রাখে ও ডায়াবেটিস রোগীদের স্নাযুরোগ প্রতিরোধ করে। ডায়াবেটিস আক্রান্ত রোগীদের চোখের সমস্যা মোকাবেলায় সহায়তা করে খেজুরে থাকা ভিটামিন এ।

ভিটামিন কে প্রোটিন ও ক্যালসিয়ামের কার্যকারিতা বজায় রেখে রক্ত জমাট বাধা মোকাবেলা করে। রক্তে সুগারের মাত্রা বেশি থাকলে ম্যাগনেসিয়ামের মাত্রা কমে যায়। নিয়মিত খেজুর খেলে ডায়াবেটিস রোগীরা এ সমস্যা এড়াত পারবেন।

ম্যাঙ্গানিজ রক্তের সুগার লেভেল ঠিক রাখতে সহায়তা করে। ভিটামিন বি৫ ডায়াবেটিসের কারণে তৈরি হওয়া পায়ের জ্বালাপোড়ার সমস্যা দূর করে। ভিটামিন বি২ বিপাক প্রক্রিয়া ভালো রাখে।

এত পুষ্টিগুণে ভরপুর ও হাতের নাগালে থাকা এ খাবারটা থেকে নিজেকে বঞ্চিত না করে সচেতনভাবে খাদ্য তালিকা তৈরি করুন, তাতে খেজুরও যোগ করুন।

সূত্র: এনডিটিভি

নোটিশ: স্বাস্থ্য বিষয়ক এসব সংবাদ ও তথ্য দেওয়ার সাধারণ উদ্দেশ্য পাঠকদের জানানো এবং সচেতন করা। এটা চিকিৎসকের পরামর্শের বিকল্প নয়। সুনির্দিষ্ট কোনো সমস্যার জন্য চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়াই শ্রেয়।

স্বাস্থ্য সেবায় যাত্রা শুরু

আঙুর কেন খাবেন?

ছোট এ রসালো ফলটিতে আছে প্রচুর পরিমাণে পুষ্টি, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, খনিজ ও ভিটামিন। আঙুরে রয়েছে ভিটামিন কে, সি, বি১, বি৬ এবং খনিজ উপাদান ম্যাংগানিজ ও পটাশিয়াম। আঙুর কোষ্ঠকাঠিন্য, ডায়াবেটিস, অ্যাজমা ও হৃদরোগের মতো রোগ প্রতিরোধে বিশেষ ভূমিকা রাখে।

সব টিপস...

চকলেটে ব্রণ হয়?

এই পরীক্ষাটি চালাতে গবেষকরা একদল ব্যক্তিকে এক মাস ধরে ক্যান্ডি বার খাওয়ায় যাতে চকলেটের পরিমাণ ছিল সাধারণ একটা চকলেটের চেয়ে ১০ গুণ বেশি। আরেক দলকে খাওয়ানো হয় নকল চকলেট বার। চকলেট খাওয়ানোর আগের ও পরের অবস্থা পরীক্ষা করে কোনো পার্থক্য তারা খুঁজে পাননি। ব্রণের ওপর চকলেট বা এতে থাকা চর্বির কোনো প্রভাব রয়েছে বলেও মনে হয়নি তাদের।

আরও পড়ুন...

            শীতের শুরুতে শিশুর যত্ন

300-250
promo3