২০ জানুয়ারি ২০১৯, ৭ মাঘ ১৪২৫

Generic selectors
Exact matches only
Search in title
Search in content
Search in posts
Search in pages

বিএসএমএমইউতে ৪৫ বিভাগে নতুন চেয়ারম্যান

নিজস্ব প্রতিবেদক, হেলথ নিউজ | ৯ জুলাই ২০১৮, ২২:০৭ | আপডেটেড ২৭ জুলাই ২০১৮, ১২:০৭

bsmmu-doctor-appointment

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) ৪৫টি বিভাগে নতুন চেয়ারম্যান (বিভাগীয় প্রধান) নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ডা. মিল্টন মিলনায়তনে ৪৫টি বিভাগের চেয়ারম্যানদের নিয়োগপত্র দেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া।

চিকিৎসাসেবা নিয়ে রোগীদের আস্থা ধরে রাখতে হবে মন্তব্য করে তিনি বলেন, “প্রত্যেকটি বিভাগের চিকিৎসা শিক্ষা, চিকিৎসা সেবা ও গবেষণার উন্নয়ন ও প্রসার আত্মনিয়োগ করতে হবে।”

মঙ্গলবার থেকে নতুন চেয়ারম্যানরা পরবর্তী তিন বছর দায়িত্ব পালন করবেন।

নিয়োগপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানরা হলেন, ইন্টারনাল মেডিসিন বিভাগে অধ্যাপক ডা. এ বি এম আব্দুল্লাহ, অনকোলজি (ক্যান্সার) বিভাগে অধ্যাপক ডা. মো. সরোয়ার আলম, অ্যান্ডোক্রাইনোলজি বিভাগে অধ্যাপক ডা. মো. ফরিদ উদ্দিন, কার্ডিওলজি বিভাগে অধ্যাপক ডা. সৈয়দ আলী আহসান, ট্রান্সফিউশন মেডিসিন বিভাগে অধ্যাপক ডা. আয়েশা খাতুন, মনোরোগবিদ্যা বিভাগে অধ্যাপক ডা. এম এম এ সালাহ উদ্দিন কাউসার (বিপ্লব), নিউরোলজি বিভাগে অধ্যাপক ডা. মো. রফিকুল ইসলাম, রিউম্যাটোলজি বিভাগে অধ্যাপক ডা. মো. নজরুল ইসলাম, হেমাটোলজি বিভাগে অধ্যাপক ডা. মো. আব্দুল আজিজ, হেপাটোলজি (লিভার) বিভাগে অধ্যাপক ডা. মামুন আল মাহতাব (স্বপ্নীল) এবং নেফ্রোলজি (কিডনি) বিভাগে অধ্যাপক ডা. আছিয়া খানম।

সার্জারি অনুষদের জেনারেল সার্জারি বিভাগে অধ্যাপক ডা. এ এইচ এম তৌহিদুল আলম, হেপাটোবিলিয়ারি, পেনক্রিয়েটিক ও লিভার ট্রান্সপ্লান্ট সার্জারি বিভাগে অধ্যাপক ডা. মো. জুলফিকার রহমান খান, নিউরো সার্জারি বিভাগে অধ্যাপক ডা. এ টি এম মোশারেফ হোসেন, রিপ্রোডাকটিভ অ্যান্ডোক্রাইনোলজি অ্যান্ড ইনফার্টিলিটি বিভাগে অধ্যাপক ডা. পারভীন ফাতেমা, গাইনোকলোজিক্যাল অনকোলজি বিভাগে অধ্যাপক ডা. সাবেরা খাতুন, কলোরেক্টাল সার্জারি বিভাগে অধ্যাপক ডা. মোঃ শাহাদত হোসেন, অবস্টেট্রিক্স এন্ড গাইনোকোলজি বিভাগে অধ্যাপক ডা. তৃপ্তি রানী দাস, অর্থোপেডিক সার্জারি বিভাগে অধ্যাপক ডা. আবু জাফর চৌধুরী (বিরু), ইউরোলজি বিভাগে অধ্যাপক ডা. এ. কে. এম. খুরশিদুল আলম, এ্যানেসথেসিয়া, এনালজেসিয়া ও ইনটেনসিভ কেয়ার মেডিসিন বিভাগে অধ্যাপক ডা. এ. কে. এম. আখতারুজ্জামান, কার্ডিয়াক সার্জারি বিভাগে অধ্যাপক ডা. রেজওয়ানুল হক বুলবুল, নাক কান ও গলা বিভাগে অধ্যাপক ডা. বেলায়েত হোসেন সিদ্দিকী, ভাসকুলার সার্জারি বিভাগে অধ্যাপক ডা. মো. মাহবুবুর রহমান, পেডিয়াট্রিক সার্জারি বিভাগে অধ্যাপক ডা. তোসাদ্দেক হোসেন সিদ্দিকী, রেডিওলজি অ্যান্ড ইমেজিং বিভাগে অধ্যাপক ডা. মো. ইকবাল হোসেন এবং ফিটোম্যাটার্নাল বিভাগে অধ্যাপক ডা. ফিরোজা বেগম।

বেসিক সায়েন্স ও প্যারাক্লিনিক্যাল সায়েন্স অনুষদের প্যাথলজি বিভাগে অধ্যাপক ডা. মো. কামরুল হাসান খান, ল্যাবরেটরি মেডিসিন বিভাগে অধ্যাপক ডা. তুহিন সুলতানা, এনাটমি বিভাগে অধ্যাপক ডা. খন্দকার মানজারে শামীম, ফার্মাকোলজি বিভাগ অধ্যাপক ডা. মো. সায়েদুর রহমান, ফিজিওলজি বিভাগে অধ্যাপক ডা. সুলতানা ফেরদৌসী, মাইক্রোবায়োলজি বিভাগে অধ্যাপক ডা. আহমেদ আবু সালেহ, বায়োকেমিস্ট্রি ও মলিকুলার বায়োলজি বিভাগে অধ্যাপক ডা. ফরহাদুল হক মোল্লা এবং ভাইরোলজি বিভাগে অধ্যাপক ডা. সাইফ উল্লাহ মুন্সী।

দন্ত অনুষদের কনজারভেটিভ ডেন্টিস্ট্রি অ্যান্ড অ্যান্ডোডনটিক্স বিভাগে অধ্যাপক ডা. মো. শামসুল আলম, অর্থোডোনটিক্স বিভাগে অধ্যাপক ডা. গাজী শামীম হাসান, ওরাল অ্যান্ড ম্যাক্সিলোফেসিয়াল সার্জারি বিভাগে অধ্যাপক ডা. কাজী বিল্লুর রহমান এবং প্রস্থোডনটিক্স বিভাগে অধ্যাপক ডা. মো. মাহবুবুর রহমান।

শিশু অনুষদের নিওনেটোলজি (নবজাতক) বিভাগে অধ্যাপক মোহাম্মদ সহিদুল্লা, শিশু বিভাগে অধ্যাপক ডা. সেলিনা খানম, পেডিয়াট্রিক গ্যাস্ট্রোএন্টারোলজি অ্যান্ড নিউট্রিশন বিভাগে অধ্যাপক ডা. এ এস এম বজলুল করিম, পেডিয়াট্রিক নেফ্রোলজি  (শিশু কিডনি) বিভাগে ডা. অধ্যাপক রনজিত রঞ্জন রায় এবং পেডিয়াট্রিক হেমাটোলজি অ্যান্ড অনকোলজি বিভাগে অধ্যাপক ডা. আনোয়ারুল করিম।

নার্সিং অনুষদে গ্রাজুয়েট নার্সিং বিভাগে অধ্যাপক মেবেল ডি রোজারিও।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (গবেষণা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মো. শহীদুল্লাহ সিকদার, উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ, উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ডা. সাহানা আখতার রহমান, অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আলী আসগর মোড়ল, মেডিসিন অনুষদের ডিন অধ্যাপক ডা. এবিএম আব্দুল্লাহ।

অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ডা. এবিএম আব্দুল হান্নান।

বিষয়:

নোটিশ: স্বাস্থ্য বিষয়ক এসব সংবাদ ও তথ্য দেওয়ার সাধারণ উদ্দেশ্য পাঠকদের জানানো এবং সচেতন করা। এটা চিকিৎসকের পরামর্শের বিকল্প নয়। সুনির্দিষ্ট কোনো সমস্যার জন্য চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়াই শ্রেয়।

স্বাস্থ্য সেবায় যাত্রা শুরু

আঙুর কেন খাবেন?

ছোট এ রসালো ফলটিতে আছে প্রচুর পরিমাণে পুষ্টি, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, খনিজ ও ভিটামিন। আঙুরে রয়েছে ভিটামিন কে, সি, বি১, বি৬ এবং খনিজ উপাদান ম্যাংগানিজ ও পটাশিয়াম। আঙুর কোষ্ঠকাঠিন্য, ডায়াবেটিস, অ্যাজমা ও হৃদরোগের মতো রোগ প্রতিরোধে বিশেষ ভূমিকা রাখে।

সব টিপস...

চকলেটে ব্রণ হয়?

এই পরীক্ষাটি চালাতে গবেষকরা একদল ব্যক্তিকে এক মাস ধরে ক্যান্ডি বার খাওয়ায় যাতে চকলেটের পরিমাণ ছিল সাধারণ একটা চকলেটের চেয়ে ১০ গুণ বেশি। আরেক দলকে খাওয়ানো হয় নকল চকলেট বার। চকলেট খাওয়ানোর আগের ও পরের অবস্থা পরীক্ষা করে কোনো পার্থক্য তারা খুঁজে পাননি। ব্রণের ওপর চকলেট বা এতে থাকা চর্বির কোনো প্রভাব রয়েছে বলেও মনে হয়নি তাদের।

আরও পড়ুন...

            গর্ভপাত এড়াতে যা জানা চাই

300-250
promo3