২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১১ বৈশাখ ১৪২৬

Generic selectors
Exact matches only
Search in title
Search in content
Search in posts
Search in pages

আমরা এলাম, কেন?

নিজস্ব প্রতিবেদক, হেলথ নিউজ | ৩ জুন ২০১৮, ১৪:০৬ | আপডেটেড ১০ জুন ২০১৮, ১২:০৬

4p

অগুণতি অনলাইনের ভিড়ের মধ্যে স্বাস্থ্যবিষয়ক খবরাখবর নিয়ে বাংলাভাষার প্রথম পূর্ণাঙ্গ মাল্টিমিডিয়া ওয়েবসাইট হিসেবে যাত্রা শুরু করল হেলথ নিউজ।
স্বাস্থ্যবিষয়ক ওয়েবসাইট কিছু থাকলেও সংবাদভিত্তিক একটি ওয়েবসাইটের অভাব অনুভব করছিলেন সংশ্লিষ্টরা, সেই শূন্যতা পূরণ করার প্রয়াসেই এসেছে হেলথ নিউজ।
শুধু খবরই নয়, স্বাস্থ্য বিষয়ক বিভিন্ন জিজ্ঞাসার সমাধান, চিকিৎসকের পরামর্শ সবই মিলবে এই নিউজ পোর্টালে; থাকবে ভিডিও-অডিও সমন্বয়ে মাল্টিমিডিয়া উপস্থাপনা।
৩ জুন, রোববার সাবেক প্রধান তথ্য কমিশনার ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক গোলাম রহমান, বিশিষ্ট চিকিৎসক অধ্যাপক এম আবদুল্লাহ, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন ও শিশু রোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ হানিফ আনুষ্ঠানিকভাবে হেলথ নিউজ উদ্বোধন করেন।
তারা নিজ নিজ ফেইসবুক পাতায় হেলথ নিউজের যাত্রা শুরুর পোস্ট দেওয়ার মাধ্যমে নতুন এই ওয়েবসাইটের আনুষ্ঠানিক যাত্রার সূচনা করেন।


এক বার্তায় তারা বলেন, “আমাদের জীবনে উদ্বেগ, আগ্রহ, কৌতূহলের একটি বড় অংশ স্বাস্থ্য নিয়ে। স্বাস্থ্য নিয়ে জানার আছে অনেক, যা নিজের কিংবা প্রিয়জনদের সুস্বাস্থ্যের জন্য জরুরি। কিন্তু বাংলাভাষায় স্বাস্থ্য বিষয়ক একটি পূর্ণাঙ্গ, সমৃদ্ধ ওয়েবসাইটের অভাব ছিল, সেই শূন্যতা পূরণ করতে এসেছে ‘হেলথ নিউজ’।”
একই সময়ে সোস্যাল মিডিয়ায় সক্রিয় পাঁচ শতাধিক ব্যক্তি নিজ নিজ ফেইসবুক পাতায় পোস্ট দিয়ে হেলথ নিউজের যাত্রা শুরুর আনুষ্ঠানিকতায় যুক্ত হন।
ভারচুয়াল এই উদ্বোধনের বিষয়ে হেলথ নিউজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রুবী আহমেদ বলেন, “যুগটা এখন তথ্য প্রযুক্তির। আমাদের সবার এখন সদর্প উপস্থিতি ভারচুয়াল জগতে। আর আমাদের সংবাদ সেবাটি যেহেতু অনলাইনভিত্তিক, তাই অনলাইনেই উদ্বোধনের ব্যতিক্রমী এই ভাবনাটি আমাদের প্রণোদিত করেছে।”


হেলথ নিউজের উপদেষ্টা সম্পাদক খ্যাতিমান শিশু রোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ হানিফ বলেন, “হেলথ নিউজে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত খবর দিয়ে যেমন পাঠকের কৌতূহল মেটাবে, তেমনি রোগ ও চিকিৎসা নিয়ে পাঠকের নানা জিজ্ঞাসার উত্তরও দেবে।”
চিকিৎসা নিয়ে পাঠকের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দিতে দেশের খ্যাতিমান চিকিৎসকদের নিয়ে একটি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক প্যানেল হেলথ নিউজের সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন বলে জানান অধ্যাপক হানিফ।
“ছাপানো সংবাদপত্রে হোক, আর অনলাইনে হোক, এতদিন আমরা শুধু পড়েই এসেছি, হেলথ নিউজ পাঠকদের দেবে ভিন্ন স্বাদ। এখানে চিকিৎসকরা সরাসরি কথা বলবেন আপনাদের সঙ্গে।”
এভাবে পূর্ণাঙ্গ একটি মাল্টিমিডিয়া ওয়েবসাইট হিসেবে হেলথ নিউজকে সাজানোর কথা বলেন বাংলাভাষায় অনলাইন সংবাদপত্রের যাত্রার শুরু থেকে এক যুগ কাজ করে আসা রুবী আহমেদ।
“এখানে পাঠক শুধু পড়বেনই না; দেখবেন, শুনবেনও।”
হেলথ নিউজের শুভযাত্রার শুভকামনা জানিয়ে বার্তা পাঠিয়েছেন দেশের চিকিৎসা ক্ষেত্রের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিরা। ঢাকা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ খান আবুল কালাম আজাদ শুভকামনা জানিয়েছেন হেলথ নিউজকে।

হেলথ নিউজের একজন মুখপাত্র বলেন, জাতীয়ভিত্তিক খবরের পাশাপাশি প্রত্যন্ত অঞ্চলের স্বাস্থ্য সেবা এবং তাতে সঙ্কটের চিত্র সবার সামনে তুলে আনতে চায় হেলথ নিউজ। এজন্য দক্ষ একদল সংবাদকর্মী যুক্ত হয়েছে এই ইন্টারনেট সংবাদপত্রটিতে।
সংবাদের পাশাপাশি স্বাস্থ্য সম্পর্কিত, স্বাস্থ্যসম্মত জীবন-যাপনের সব বিষয়ে পাঠকের খোরাক মেটাতে নানা উপাদান থাকছে হেলথ নিউজে।


স্বাস্থ্য বিষয়ক বিভিন্ন টিপস থাকবে হেলথ নিউজে, বিভিন্ন চিকিৎসক ও হাসপাতালের সব তথ্য জানতে পারবেন এখানেই।
চিকিৎসক ও পাঠকের মধ্যে সেতুবন্ধন গড়ে তুলতে তাদের ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতার গল্পগুলোও তুলে ধরা হবে হেলথ নিউজে।
ইন্টারনেটে ফেইসবুকইউটিউবের মতো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও থাকবে সক্রিয়। এই প্রচেষ্টায় নাগরিকের যে-কোনো ধরণের অভিমত ও গঠনমুলক সমালোচনার প্রত্যাশায় পথ চলতে চায়, টিম হেলথ নিউজ।

বিষয়:

নোটিশ: স্বাস্থ্য বিষয়ক এসব সংবাদ ও তথ্য দেওয়ার সাধারণ উদ্দেশ্য পাঠকদের জানানো এবং সচেতন করা। এটা চিকিৎসকের পরামর্শের বিকল্প নয়। সুনির্দিষ্ট কোনো সমস্যার জন্য চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়াই শ্রেয়।

স্বাস্থ্য সেবায় যাত্রা শুরু

আঙুর কেন খাবেন?

ছোট এ রসালো ফলটিতে আছে প্রচুর পরিমাণে পুষ্টি, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, খনিজ ও ভিটামিন। আঙুরে রয়েছে ভিটামিন কে, সি, বি১, বি৬ এবং খনিজ উপাদান ম্যাংগানিজ ও পটাশিয়াম। আঙুর কোষ্ঠকাঠিন্য, ডায়াবেটিস, অ্যাজমা ও হৃদরোগের মতো রোগ প্রতিরোধে বিশেষ ভূমিকা রাখে।

সব টিপস...

চকলেটে ব্রণ হয়?

এই পরীক্ষাটি চালাতে গবেষকরা একদল ব্যক্তিকে এক মাস ধরে ক্যান্ডি বার খাওয়ায় যাতে চকলেটের পরিমাণ ছিল সাধারণ একটা চকলেটের চেয়ে ১০ গুণ বেশি। আরেক দলকে খাওয়ানো হয় নকল চকলেট বার। চকলেট খাওয়ানোর আগের ও পরের অবস্থা পরীক্ষা করে কোনো পার্থক্য তারা খুঁজে পাননি। ব্রণের ওপর চকলেট বা এতে থাকা চর্বির কোনো প্রভাব রয়েছে বলেও মনে হয়নি তাদের।

আরও পড়ুন...

              শিশুর কোষ্ঠকাঠিন্য, কী করবেন?

300-250
promo3