রেসিপি

মচমচে ফ্রেঞ্চ ফ্রাই ঘরেই

সব বয়সীদের খাবারের পছন্দের তালিকায় জায়গা করে নিয়েছে ফ্রেঞ্চ ফ্রাই। ঘরেই কম সময়ে বানাতে পারেন মজাদার ফ্রেঞ্চ ফ্রাই।

আরও পড়ুন...

মেজবানি মাংস

চট্টগ্রামের মেজবানি মাংসের কদর সবার কাছে। আর এই ঈদে…

বর্ষায় মজাদার নরম খিচুড়ি

বৃষ্টির মৌসুমে সব ধরণের খিচুড়িই ভাল লাগে। নরম খিচুড়ির…

পেয়ারা মিল্ক শেক

পাকা পেয়ারা দিয়ে খুব মজাদার মিল্ক শেক বানানো যায়।…

ঈদের লাচ্ছা সেমাই

ঈদে লাচ্ছা সেমাই খুব জনপ্রিয় একটি খাবার। লাচ্ছা সেমাই রান্না করতে সময়ও কম লাগে।

বিউটির শরবত

পুরান ঢাকার জজ কোর্ট এলাকার বিউটির লেবুর শরবতের চাহিদা  অনেক। বানানোর পদ্ধতিটাও জানালেন কারিগর মোহাম্মদ আলাউদ্দিন। উপকরণ পানি পরিমাণমতো, কলম্বো লেবু চারটা, চিনির শিরা ৪০০ গ্রাম (আট গ্লাসের জন্য) এবং…

ঘরে বানান জিলাপি

জিলাপির প্যাচ দেখে কঠিন মনে হলেও আদতে এটি বানানো অত কঠিন কিন্তু নয়। স্বাদে ভরপুর এই জিলাপি বানাতে পারেন ঘরেই। উপকরণ ময়দা ২ কাপ চিনি ৪ কাপ পানি পৌনে এক…

বেলের শরবত

কাঠফাটা গরমে ঠান্ডা এক গ্লাস বেলের শরবত প্রাণ জুড়িয়ে দেয়। এছাড়া বেলের গুণও রয়েছে অনেক। এতে আছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি, ভিটামিন এ, ক্যালসিয়াম, ফসফরাস ও পটাশিয়াম। উপকরণ: পাকা বেল…

স্বাস্থ্য সেবায় যাত্রা শুরু

আঙুর কেন খাবেন?

ছোট এ রসালো ফলটিতে আছে প্রচুর পরিমাণে পুষ্টি, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, খনিজ ও ভিটামিন। আঙুরে রয়েছে ভিটামিন কে, সি, বি১, বি৬ এবং খনিজ উপাদান ম্যাংগানিজ ও পটাশিয়াম। আঙুর কোষ্ঠকাঠিন্য, ডায়াবেটিস, অ্যাজমা ও হৃদরোগের মতো রোগ প্রতিরোধে বিশেষ ভূমিকা রাখে।

সব টিপস...

চকলেটে ব্রণ হয়?

এই পরীক্ষাটি চালাতে গবেষকরা একদল ব্যক্তিকে এক মাস ধরে ক্যান্ডি বার খাওয়ায় যাতে চকলেটের পরিমাণ ছিল সাধারণ একটা চকলেটের চেয়ে ১০ গুণ বেশি। আরেক দলকে খাওয়ানো হয় নকল চকলেট বার। চকলেট খাওয়ানোর আগের ও পরের অবস্থা পরীক্ষা করে কোনো পার্থক্য তারা খুঁজে পাননি। ব্রণের ওপর চকলেট বা এতে থাকা চর্বির কোনো প্রভাব রয়েছে বলেও মনে হয়নি তাদের।

আরও পড়ুন...

      ভিটামিন ডির ঘাটতি পূরণে কী করণীয়?

300-250
promo3

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করুন

ফুলের রাজ্যে

ছবি: মিজান আহমেদ

জন্মনিয়ন্ত্রণে পুরুষের জন্য পিল

জন্মনিয়ন্ত্রণের জন্য পুরুষরা নিয়মিত খেতে পারবেন এমন একটি নিরাপদ পিল…

শীতের শুরুতে সতর্কতা

রেনিটিডিনে ক্যান্সারের উপাদান

অ্যাসিড নিঃসরণ প্রতিরোধসহ পেটের পীড়ার নানা উপসর্গের চিকিৎসায় বিশ্বজুড়ে বহুল প্রচলিত ওষুধ রেনিটিডিনের মধ্যে সম্ভাব্য ক্যান্সার সৃষ্টিকারী উপাদান পাওয়া গেছে।