১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ৫ ফাল্গুন ১৪২৫

Generic selectors
Exact matches only
Search in title
Search in content
Search in posts
Search in pages

গর্ভাবস্থায় যেসব খাবারে মানা

নিজস্ব প্রতিবেদক, হেলথ নিউজ | ১৮ এপ্রিল ২০১৮, ০০:০৪ | আপডেটেড ২ জুন ২০১৮, ১১:০৬

25348396_10155950041094289_

গর্ভাবস্থায় অনাগত শিশু পুষ্টি পায় তার মায়ের কাছ থেকে। সন্তান আর মায়ের ভবিষ্যৎ সুস্থতা নির্ভর করে খাবারের ওপর। মা ও সন্তানের পুষ্টির জন্য খাবার গুরুত্বপূর্ণ হলেও সম্ভাব্য ক্ষতিকর খাবারগুলো বরং তাদের স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে ফেলতে পারে।

গর্ভাবস্থায় এড়িয়ে চলা উচিত এমন কয়েকটি খাবারের কথা এনডিটিভিকে জানিয়েছেন ভারতের ডব্লিউ প্রতীক্ষা হাসপাতালের জ্যেষ্ঠ স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ রাগিনি আগারওয়াল।

১. উচ্চ মার্কারি সমৃদ্ধ মাছ

মারকিউরী হলো চূড়ান্ত পর্যায়ের বিষ। মারকিউরী রয়েছে এমন ধরণের মাছ সবসময় এড়িয়ে চলতে বলা হয় সাধারণ জনগণকে। তাই হবু মায়েদেরও এটা এড়িয়ে চলতে হবে। শার্ক, টুনা, কিং ম্যাকেরেল ও সোর্ড এ ধরণের মাছের অন্তর্ভূক্ত।

রাগিনি আগারওয়াল বলেন, “মাসে একবার বা দুবারের বেশি হবু মায়ের এ মাছ খাওয়া উচিত নয়। গর্ভাবস্থায় সুশি খাওয়াও পুরোপুরি বাদ দেওয়া উচিত।”

২. ক্যাফেইন

কফি, এনার্জি ড্রিংকস, কোমল পানীয়তে ক্যাফেইন থাকে। গর্ভবতী নারীদের এ সময় অতিরিক্ত মাত্রায় ক্যাফেইন গ্রহণ নিষেধ করা হয়। ক্যাফেইন সহজেই শরীরে শোষিত হয়ে গর্ভস্থ শিশুর বৃদ্ধি ব্যহত হতে পারে।

 ৩.প্রক্রিয়াজাত জাঙ্ক ফুড

আগারওয়াল বলেন, ময়দা দিয়ে তৈরি প্রক্রিয়াজাত খাবার খাওয়া উচিত নয় হবু মায়েদের। যেসব খাবারে প্রিজারভেটিভ, কৃত্রিম ভিটামিন রয়েছে এবং যেগুলো ভাজা সেসবও বাদ দেওয়া উচিত।

৪. প্যাকেটজাত ফল ও সালাদ

প্যাকেটজাত ফল ও সালাদ গর্ভবতী নারীদের জন্য নিরাপদ নয়। কারণ এতে প্রিজারভেটিভ ছাড়াও কৃত্রিম ভিটামিন যোগ করা হয়। শিশু স্বাস্থ্যের জন্য এগুলো সরাসরি ক্ষতিকারক হতে পারে।

৫. কাঁচা ডিম

কাঁচা ডিমে স্যালমোনিলা নামক ব্যাকটেরিয়া থাকে। ডিম ভালভাবে সিদ্ধ করে খেতে হবে এবং কাঁচা ডিম খাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে।

৬. কাঁচা স্প্রাউটস

স্প্রাউটস (এক ধরনের অংকুরিত সীম) খুব স্বাস্থ্যকর হলেও কাঁচা স্প্রাউটস গর্ভবতী নারীদের জন্য নিরাপদ নয়। কাঁচা স্প্রাউটসের বীজে স্যালমোনিলা নামের এক ধরণের ব্যাকটেরিয়া এমনভাবে মিশে যায় যা ধোয়ার পরও থাকে। তাই কাঁচা নয় রান্না হলেই এটা নিরাপদে খেতে পারবেন হবু মা।

৭. নেশাজাতীয় পানীয়

গর্ভাবস্থায় নেশাজাতীয় পানীয় খেলে গর্ভপাতের আশঙ্কা বেড়ে যায় এবং এতে শিশুর মস্তিষ্কের গঠন ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

নোটিশ: স্বাস্থ্য বিষয়ক এসব সংবাদ ও তথ্য দেওয়ার সাধারণ উদ্দেশ্য পাঠকদের জানানো এবং সচেতন করা। এটা চিকিৎসকের পরামর্শের বিকল্প নয়। সুনির্দিষ্ট কোনো সমস্যার জন্য চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়াই শ্রেয়।

স্বাস্থ্য সেবায় যাত্রা শুরু

আঙুর কেন খাবেন?

ছোট এ রসালো ফলটিতে আছে প্রচুর পরিমাণে পুষ্টি, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, খনিজ ও ভিটামিন। আঙুরে রয়েছে ভিটামিন কে, সি, বি১, বি৬ এবং খনিজ উপাদান ম্যাংগানিজ ও পটাশিয়াম। আঙুর কোষ্ঠকাঠিন্য, ডায়াবেটিস, অ্যাজমা ও হৃদরোগের মতো রোগ প্রতিরোধে বিশেষ ভূমিকা রাখে।

সব টিপস...

চকলেটে ব্রণ হয়?

এই পরীক্ষাটি চালাতে গবেষকরা একদল ব্যক্তিকে এক মাস ধরে ক্যান্ডি বার খাওয়ায় যাতে চকলেটের পরিমাণ ছিল সাধারণ একটা চকলেটের চেয়ে ১০ গুণ বেশি। আরেক দলকে খাওয়ানো হয় নকল চকলেট বার। চকলেট খাওয়ানোর আগের ও পরের অবস্থা পরীক্ষা করে কোনো পার্থক্য তারা খুঁজে পাননি। ব্রণের ওপর চকলেট বা এতে থাকা চর্বির কোনো প্রভাব রয়েছে বলেও মনে হয়নি তাদের।

আরও পড়ুন...

মেয়ের প্রথম ঋতুচক্র এবং অভিভাবকের করণীয়

300-250
promo3